সত্যের সন্ধানে আমরা

ইন্টারনেটে এই দম্পতির ছবি হয়তো সবাই দেখেছেন, কিন্তু এদের আসল পরিচয় জানলে আপনি চমকে যাবেন…

0

ইন্টারনেটে troll বা মজার সময় চলছে। যারা এসব ট্রল বা মজার ছবি বানায় তারা যে কোন ছোটখাটো খবরকে তুলে নিয়ে সেগুলোর ব্যাপারে ট্রল করতে শুরু করে এবং মানুষও সেগুলোর জোরদার ইয়ার্কি করতে শুরু করে। সাধারনত সেলিব্রিটিদের ট্রল করা হয় কিন্তু কখনো কখনো সাধারন মানুষের যদি কোন আজব ছবি দেখা যায় তাহলে এই সমস্ত ট্রল বানানোর ছেলেরা সেই সমস্ত ছবিগুলোকে নিয়ে ট্রল তৈরি করতে শুরু করে দেয়। শেষ কিছুদিন ধরে পুরো ইন্টারনেট জুড়ে এই দম্পতির ছবি ঘোরাঘুরি করতে দেখা গেছে।

এই দম্পতির একে অপরের গায়ে রং দেখতেই পাচ্ছেন। তো এইরকম ছবি দেখে যে কেউ খুবই মজাদার কমেন্ট করতে পারে। কিন্তু আপনাদের জানিয়ে রাখি যে এই ছবিতে যে ছেলেটিকে দেখা যাচ্ছে সে কোন সাধারন ছেলে নয় বরং সে একজন সেলিব্রিটি।

আপনি জানতে চাইবেন না ইনি কে ?

বহু বছরের সম্পর্ক

“ভালোবাসা রুপ দেখে নয় মন দেখে হয়” এই কথা আমরা সবাই জানি। আর এই দুজনকে দেখে বোঝা যায় যে সেই কথাটা কতটা সত্যি। এই দুজন বিয়ে করার বহু আগে থেকেই প্রেম করছেন। এদের সম্পর্ক বিয়ের আগে চার বছরের ছিল।

এইভাবে প্রথম দেখা হয়েছিল

আমরা আগেই বলেছি যে এরা দুজনই সিনেমা জগতের সাথে জড়িত। তাই একটি সিরিয়ালের শুটিঙের প্রথম দিনেই এদের একে অপরের সাথে আলাপ হয় এবং সিরিয়ালের শুরুর পার্টিতে এনাদের বাবা মায়ের একে অপরের সাথে আলাপ করে।

অভিভাবকরা তাদের সাথে এটা করেছিল

একে অপরের অভিবাবকদের তাদের দুজনকে খুব পছন্দ ছিল কিন্তু তারা এই কথাটি লুকিয়ে রেখেছিলেন। কিন্তু যখন এই ছেলে মেয়েটি নিজেদের বিয়ের কথা তাদের বাবা-মাকে বলতে যায় তখন তারা জানতে পারে যে তার বাবা-মা তো অনেক আগে থেকেই তাদের বিয়ে একে অপরের সাথে ঠিক করে রেখেছে। ২০১৪ নভেম্বর মাসে তাদের বিয়ে হয়।

প্রসিদ্ধ পরিচালক

এই ছেলেটির নাম পটলী কুমার, তার আর এক নাম অরুন কুমার। দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমায় অনেক বড় নামকরা একজন লোক তিনি। পটলী কুমার অর্থাৎ অরুন কুমার ভারতীয় সিনেমার নির্দেশক এবং লেখক রূপে পরিচিত। কিন্তু ইনি বেশিরভাগ সময়ই তামিল সিনেমাতেই কাজ করেছেন।

প্রথম সিনেমাতেই পুরষ্কার পেয়েছিলেন

অরুন কুমার তার প্রথম সিনেমা “রাজা-রানী” এর জন্য শ্রেষ্ঠ পরিচালকের পুরষ্কার পেয়েছিলেন। এছাড়াও তিনি অনেক বিখ্যাত সুপারহিট সিনেমা নির্দেশিত করেছেন।

দ্বিতীয় সিনেমাটিও সুপারহিট

কুমাদের নির্দেশনায় তার দ্বিতীয় সিনেমা “Theri” ২০১৬ সালে সবথেকে বেশি ব্যবসা করা সিনেমা রূপে সামনে এসেছিল। এর পরে কুমার “Enthiran” এবং থ্রি ইডিয়টসের রিমেক করেছিলেন।

Tv দুনিয়ার উজ্জ্বল তারকা

তার স্ত্রীর নাম কৃষ্ণ প্রিয়া, তিনি সিনেমা জগতের অনেক বড় একজন তারকা। তিনি অনেকগুলি সিনেমাও করেছেন। Naan Mahaan Alla, Red Chillies এবং Divine তার মধ্যে অন্যতম।

অক্টোবরে আবার একটি সিনেমা

পটলী কুমারের নির্দেশনায় তৈরি “বিজয়”, সামান্থা আর কাজল আগ্রওয়ালের জুটি মিলে একটি সিনেমা এসেছে অক্টোবরে। পটলীর “A for apple” নামে একটি প্রোডাকশন হাউস আছে ।

যখন কেউ ভালোবাসে তখন শুধু মন দেখে

যারা সত্যি কাউকে ভালোবাসে তারা জানেন যে গায়ের রঙ দেখে কখনো ভালবাসা হয় না। ভালোবাসা তো মন দেখে হয়। কিন্তু এত কথা জানা সত্ত্বেও আমরা এই দম্পতীকে নিয়ে ইন্টারনেটেে ইয়ার্কি করে যাচ্ছি দধি

Leave A Reply

Your email address will not be published.