১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৩রা জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯ হিজরী

মেয়েটির দোষ কি? (ভিডিও)

ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৮, সময় ৩:৩৪ অপরাহ্ণ

‘মেয়েটির দোষ কি? পুলিশ কেন মারছে?’ সম্প্রতি পুলিশের একটি নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর এমন প্রশ্ন জনসাধারণের মনে ঘুরপাক খাচ্ছে। এর পাশাপাশি এ বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন মানবধিকার কর্মীরা।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যায়, ট্রাফিক সিগনালে আটকা অনেক মানুষজনের সামনেই এক মেয়েকে তিন জন পুলিশ মিলে মারছে। সিগনালের অনেকেই দাঁড়িয়ে তা দেখছে। কেউ এগিয়ে যাচ্ছে না। উৎসাহী এক জনতা সেটি ভিডিও করেছে।

ভিডিওর শেষে দেখা যায়- সেই উৎসাহী জনতার দিকে পুলিশের এক সদস্য তেড়ে আসে। ভিডিওটি নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা হচ্ছে। একজন পথচারী ভিডিওটি করছিলেন, পরে পুলিশ সদস্যরা এসে তাকে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে।

তবে ভিডিওটিতে দেখা গেছে ঘটনার সময় দু’দিকের রাস্তার যান চলাচল স্বভাবিক ছিল। লোকজনও চলাচল করছিল। এদিকে ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে পুলিশের বিরুদ্ধে তির্যক মন্তব্য আসতে থাকে।

সাইফুল ইসলাম সাইফ ফেসবুকে লিখেছেন, ‘এই সব পুলিশ বাহিনীতে কর্মরত সকল কে জানাই অন্তরের অন্তসস্থল থেকে তাদের সন্তান্দের প্রতি ভালবাসা(!) দোয়া করি আপনাদের সন্তানদের যেন এইভাবে জানোয়ারের মত কেউ না মারে!’

ড্রিফট কিং নামে একজন ফেসবুকে ভিডিওটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘এদের বিরুদ্ধে এখনই রুখে দাঁড়ান, না হলে আজ অন্য কেউ, কাল আপনি আমি সবাই এর স্বীকার হতে পারি!’

খন্দকার তরিকুল ইসলাম লিখেছেন, ‘এদের মত পুলিশ যারা পেশাদার আচরণ করে না তাদের কে ফ্লাইং কিক মারবে না তো শুয়ে পড়ে কিক মারবে?’

এ বিষয়ে ডিসি (ট্রাফিক-পূর্ব) বলেন, ভিডিওটি আমিও দেখেছি। তবে ওই সদস্যরা আমাদের জোনের না। বঙ্গভবন ও গুলিস্তান এলাকার ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ ঢাকা পূর্ব জোনের অনুকূলে। সম্ভবত সেই সময় রাষ্ট্রপতি মুভমেন্ট করছিলেন। উনারা সম্ভবত প্রেসিডেন্টের নিরাপত্তা ফোর্সের।

পুলিশের এরকম আচরণে ক্রুদ্ধ হয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মানবধিকার কর্মী বলেছেন, ‘ভিডিওটি আমি সব মিলিয়ে পাঁচ বারের বেশি বার দেখলাম। যতোবার ভিডিওটি দেখছিলাম, ততোবার মনে হচ্ছিলো রক্ষকের বেশে একজন ভয়ানক রাক্ষস, নারীর রক্ত খাওয়াই যার অন্যতম কাজ।

তিনি আরও বলেন, ‘ভিডিওর সূত্র ধরে জানা যায়, পুলিশ বলছেন মেয়েটি রাস্তা থেকে সরছিলো না বলেই তিনি এই কাজ করেছেন, কিন্তু পুরো ভিডিওতে আমি রাস্তা থেকে সরার কোনো কারণ খুজে পেলাম না। এমনকি ভিআইপি মুভমেন্টও চলছিলো না, কারণ দুই রাস্তাতেই যান চলাচল ছিল স্বাভাবিক। তাহলে মেয়েটি কি একজন অপরাধী? ছিচকে চুর? যদি তাও হয়ে থাকে। তাহলে সেই অপরাধীকে রাস্তায় মারধর করার অধিকার একজন পোশাকধারী পুলিশকে কোন আদালত দিয়েছেন আমি তা জানতে চাই?’

প্রসঙ্গত, ভিডিওটি কোথাকার বা মেয়েটিকে কেন মারা হচ্ছে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। আর ভিডিওটিতে যে স্থানটি দেখা গেছে তা হচ্ছে ঠিক বঙ্গভবনের প্রবেশমুখ। মওলানা ভাসানী স্টেডিয়াম পেরিয়ে সোজা রাস্তাটি শিল্প ব্যাংকের সামনে চলে গেছে, একটি বঙ্গভবনের দিকে গেছে। ঠিক এই টার্ন নেওয়ার জায়গায় এক অপ্রকৃতিস্থ কিশোরী রাস্তা অতিক্রম করার চেষ্টা করে। তাকে সেখানের দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা ক্রমাগত শারীরিকভাবে আঘাত করতে থাকে। একসময় কিশোরীটি রাস্তায় পড়ে গেলেও তার ওপর চড়াও হয় পুলিশ সদস্য।

মেয়েটির কি অপরাধ?

Posted by SojaKotha on Wednesday, February 7, 2018