১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ৩রা জমাদিউস-সানি, ১৪৩৯ হিজরী

স্ত্রীকে পরকীয়ারত অবস্থায় দেখে স্বামীর কাণ্ড!

ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৮, সময় ৩:২৩ অপরাহ্ণ

নিজের হাতে স্ত্রীর প্রেমিককে কুঁপিয়ে খুন করে, স্ত্রীকে জখম করে থানায় আত্মসমর্পণ করেছে স্বামী। শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে মালদহের চাঁচোলের কপিলহাটায় এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ অভিযুক্ত হরমন মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করেছে। হরমনের স্ত্রী রাখী মণ্ডল গুরুতর অবস্থায় চাঁচোল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরকীয়ার জেরেই এই খুন বলে প্রাথমিকভাবে অনুমান করছে পুলিশ।

চাঁচলের কপিলহাটের বাসিন্দা হরমন শেখের সঙ্গে পাশের গ্রামেরই বাসিন্দা আশরাফুল শেখের বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিলো। পেশায় সবজি বিক্রেতা হরমনই অটোচালক বন্ধু আশরাফুলকে তাঁর বাড়িতে নিয়ে গিয়েছিলেন। হরমনের বাড়িতে বারবার যাতায়াতের ফলে তাঁর স্ত্রী রাখী আশরাফুলের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে আশরাফুল, দাবি স্থানীয় বাসিন্দাদের। এই নিয়ে হরমনের সঙ্গে রাখীর প্রায়ই অশান্তি লেগে থাকত বলে জানান এলাকাবাসী।

জানা গিয়েছে, শনিবার সকালে হরমন সবজি বিক্রি করে বাড়ি ফিরে বাথরুমের মধ্যে রাখীর সঙ্গে আশরাফুলকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেললে হরমনের মাথায় রক্ত চড়ে যায়। তৎক্ষণাৎ সে ঘরে থাকা মাটি কাটার কোঁদাল নিয়ে বাথরুমের মধ্যেই আশরাফুলকে কোঁপাতে থাকে।

এ সময় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় আশরাফুলের (৩৫)। পাশাপাশি রাখীকেও কুপিয়ে জখম করে সে। এরপর রক্তমাখা সেই কোদাল হাতেই সটান চাঁচোল থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে হরমন। থানায় গিয়ে বলে, নিজের হাতে স্ত্রীর প্রেমিককে কুপিয়ে খুন করেছে সে। সকাল সকাল থানায় এভাবে হাতে রক্তমাখা কোদাল হাতে অভিযুক্তর আত্মসমর্পণে হতভম্ব হয়ে যান পুলিশ কর্মকর্তারা।

পুলিশ তৎক্ষনাৎ অভিযুক্ত হরমন মণ্ডলকে গ্রেপ্তার করে। পাশাপাশি কপিলহাটে হরমনের বাড়ি থেকে আশরাফুলের দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। সেইসঙ্গে জখম রাখীকে চাঁচোল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। যদিও আশরাফুলের পরিবার জানিয়েছে, পরকীয়া সম্পর্ক নয়, লেনদেন সংক্রান্ত ঝামেলার কারণেই এই খুন। আশরাফুলের পরিবার থানায় গিয়ে হরমনের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেছে।